Home মাধ্যমিক মাধ্যমিকের টেস্ট পরীক্ষা নেয়া যাবে কিনা, জানায়নি শিক্ষা মন্ত্রণালয়

মাধ্যমিকের টেস্ট পরীক্ষা নেয়া যাবে কিনা, জানায়নি শিক্ষা মন্ত্রণালয়

174
0

অভিজিৎ ভট্টাচার্য্য

মাধ্যমিকের টেস্ট পরীক্ষা নেয়া যাবে কিনা- সেটি এখনো জানায়নি শিক্ষা মন্ত্রণালয়। কিন্তু ঢাকার কয়েকটি স্কুল ইতোমধ্যেই টেস্ট পরীক্ষা নেয়া শুরু করেছে। আরো কয়েকটি স্কুল পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে। ফলে বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে দেশজুড়ে।

ঢাকার রাজউক উত্তরা মডেল কলেজে গতকাল রবিবার থেকে, রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজে গত ৩ নভেম্বর থেকে এবং মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরি স্কুল এন্ড কলেজেও টেস্ট পরীক্ষা শুরু হয়েছে। এ খবরের পর ঢাকাসহ দেশের অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান একে অন্যের সঙ্গে আলোচনা করছে। তারাও টেস্ট পরীক্ষা নেয়ার জন্য প্রস্তুত। তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কোনো নির্দেশনা না থাকায় তারা পরীক্ষা নেবেন কিনা- এ নিয়ে দোটানায় পড়েছেন। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানরা বলছেন, টেস্ট পরীক্ষা যদি নিতেই হয় তাহলে দ্রুত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জানানো উচিত। এভাবে কেউ নেবে আর কেউ নেবে না, এটা তো হতে পারে না।
জানতে চাইলে রাজধানীর কিশলয় বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষ মো. রহমত উল্লাহ বলেন, দুইভাবে দেশজুড়ে টেস্ট পরীক্ষা নেয়া যেতে পারে। একটি হচ্ছে, শিক্ষা মন্ত্রণালয় বলবে, আগামী এতদিনের মধ্যে অনলাইনে অথবা সশরীরে স্কুলে হাজির হয়ে টেস্ট পরীক্ষায় অংশ নেবে শিক্ষার্থীরা। অথবা বর্তমানে অ্যাসাইনমেন্ট নির্ভর যে মূল্যায়ন ব্যবস্থা চলছে সেটিও ব্যবহার করা যেতে পারে। এক্ষেত্রেও শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে বলতে হবে, ১০টি অ্যাসাইনমেন্টের মাধ্যমে টেস্ট পরীক্ষা নেয়া হবে। শিক্ষার্থীরা বাড়িতে বসেই অ্যাসাইনমেন্টের কাজ করে স্কুলে জমা দেবে। তিনি বলেন, মন্ত্রণালয় যদি দ্রুত ঘোষণা দিয়ে বিষয়টি জানিয়ে দেয় তাহলে টেস্ট পরীক্ষা নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি হবে না।
সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ঢাকার যে ৩টি স্কুলে টেস্ট পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে তার দুটিরই অর্থাৎ রেসিডেনসিয়াল কলেজ ও রাজউক উত্তরা মডেল কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন। করোনা আক্রান্ত হয়ে তিনি বাড়িতে চিকিৎসাধীন আছেন। এ কারণে সচিবের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তবে মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন সূত্র জানায়, ২০২১ সালের মাধ্যমিক পরীক্ষার টেস্ট কীভাবে নেয়া হবে সে বিষয়ে স্কুলগুলোকে একটি সম্মিলিত নির্দেশনা দেয়া হবে।
জানতে চাইলে রাজধানীর মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরি স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. বেলায়েত হোসেন বলেন, টেস্ট পরীক্ষা নেয়ার জন্য সরকার এখনো নির্দেশ দেয়নি ঠিকই, তবে যদি দেয় তাহলে আমাদের যাতে কোনো তাড়াহুড়ো করতে না হয়, সে জন্য আগেভাগেই পরীক্ষার কাজ শেষ করে রাখা। এতে আগামী ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠেয় মাধ্যমিক পরীক্ষায় যারা অংশ নেবে তারা ভালো প্রস্তুতি নিতে পারবে।
তবে টেস্ট পরীক্ষা নেয়ার বিষয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করছেন অভিভাবকরা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন অভিভাবক বলেন, স্কুল কর্তৃপক্ষ যে টিউশন ফি আদায় করছে তা জায়েজ করার জন্য তড়িঘড়ি করে টেস্ট পরীক্ষা নিচ্ছে। অথচ শিক্ষা মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে এখনো অনুমতিই দেয়নি। মন্ত্রণালয়ের অনুমতি নিয়ে পরীক্ষা নিলে ভালো হতো বলে মনে করেন তিনি।
গত অক্টোবরের মাঝামাঝি সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছিলেন, ২০২১ সালে যারা মাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশ নেবে তাদের অবশ্যই টেস্ট পরীক্ষা কিংবা একটি অ্যাসেসমেন্টের মাধ্যমে মূল্যায়ন করা হবে। তবে সেই মূল্যায়নটি কীভাবে হবে তার কৌশল এখনো জানাননি শিক্ষামন্ত্রী। এছাড়া বেশ কয়েক বছর আগে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে শিক্ষা বোর্ড থেকে একটি আদেশ জারি করে বলা হয়েছিল, টেস্ট পরীক্ষায় ফেল করা কোনো শিক্ষার্থী মাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে না। ওই আদেশটি এখনো বলবৎ আছে। সেই আদেশের বিষয়টি টেনে এনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানরা বলছেন, আগের আদেশটি যদি বলবৎ থাকে তাহলে অবশ্যই টেস্ট পরীক্ষা নিতে হবে। আর যদি আদেশটিকে করোনার কারণে শিথিল করা হয় তাহলে অন্য কোনো নির্দেশনা জারি করতে হবে।
জানতে চাইলে আন্তঃশিক্ষা বোর্ডের সমন্বয়ক ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক বলেন, আগামী বছরের মাধ্যমিকের টেস্ট পরীক্ষার আয়োজন বা বিকল্প কোনো প্রস্তাবনা বোর্ড থেকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়নি। ফলে টেস্ট পরীক্ষার বিষয়ে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। টেস্টে ফেল করা শিক্ষার্থী মাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে না-সংক্রান্ত আদেশটি এখনো বলবৎ আছে। এ অবস্থায় পরীক্ষা না হলে কি হবে, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, অন্য কোনো বিকল্প নির্দেশনা দিতে হবে।
সূত্র: ভোরের কাগজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here