Home বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে না জানিয়েই সান্ধ্যকালীন কোর্সের ভর্তি পরীক্ষা !

কর্তৃপক্ষকে না জানিয়েই সান্ধ্যকালীন কোর্সের ভর্তি পরীক্ষা !

41
0

কর্তৃপক্ষকে না জানিয়েই সান্ধ্যকালীন এমবিএ কোর্সের ভর্তি পরীক্ষা নিচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ। অথচ করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সব বিভাগ ও ইন্সটিটিউটের সরাসরি ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে।

বাণিজ্যিক ভিত্তিতে পরিচালিত এসব অনিয়মিত কোর্সে নতুন শিক্ষার্থী ভর্তি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত ছিল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের।  এ সিদ্ধান্তও লঙ্ঘন করা হলো।

ভর্তি পরীক্ষা নিতে সহযোগিতার জন্য ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষকদের চিঠি পাঠিয়েছেন ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন অধ্যাপক মুহাম্মদ আবদুল মঈন। চিঠিতে বলা হয়েছে– শুক্রবার আজিমপুর গভর্নমেন্ট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজে বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের এমবিএ (ইভিনিং) প্রোগ্রামের (৪৫তম ব্যাচ) ভর্তি পরীক্ষার আয়োজন করা হয়েছে। বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত এ পরীক্ষা নেয়া হবে।

তবে এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) কিছুই জানেন না বলে জানা গেছে।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে নানা সমালোচনার মুখে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিল সান্ধ্যকোর্স পরিচালনার সময়োপযোগী নীতিমালা করতে বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন  উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক নাসরীন আহমাদকে প্রধান করে একটি কমিটি করে দেয়। কমিটিতে আরও ছিলেন উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ, সাবেক কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. কামাল উদ্দীন, ১৩টি অনুষদের ডিন ও দুটি ইন্সটিটিউটের (আইবিএ এবং শিক্ষা ও গবেষণা) পরিচালক।  এই কমিটিকে পরবর্তী ৫ সপ্তাহের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়।  এ সময়ের মধ্যে নতুন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের সান্ধ্যকালীন কোর্সে ভর্তি ও বিজ্ঞাপন বন্ধ রাখার এবং যেসব কোর্সে ভর্তির বিজ্ঞাপন হয়েছে সেগুলোর কার্যক্রম স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে জানতে চাইলে উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল বলেন, প্রশাসনে অগোচরেই এই পরীক্ষা হচ্ছে। এই বিষয়ে আমরা জানি না। এখন করোনার জন্য সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ। অন্যদিকে সান্ধ্যকোর্সের জন্য নীতিমালা নির্ধারণ না হওয়া পর্যন্ত সান্ধ্যকোর্সে কোনো পরীক্ষা না নেয়ার ব্যাপারে নির্দেশনা আছে। এ বিষয়ে উপাচার্যই বলতে পারবেন।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান যুগান্তরকে বলেন, এটি পুরনো পরীক্ষা কিনা ডিনের সঙ্গে কথা না বলে আমি বলতে পারব না।

পরীক্ষার জন্য অনুমতি নেয়া হয়েছে কিনা জানতে চাইলে উপাচার্য বলেন, ‘আমার তো এগুলো কিছুই মনে পড়ছে না। এটি কী পরীক্ষা সেটিও জানি না। ডিনের সঙ্গে কথা না বললে কিছু বুঝতে পারব না। ’

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here