শিরোনাম
  • মেলায় যাই রে...গানটি বিটিভির ‘আনন্দ মেলা’ অনুষ্ঠানে প্রথম উপস্থাপন  ইসরাইলে হামলায় যেসব ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করেছে ইরান পঞ্চম গণবিজ্ঞপ্তিতে আবেদন শুরু বুধবার চলবে ৯ মে রাত ১২টা পর্যন্ত  আলপনার রঙে রাঙানো হচ্ছে হাওরের ১৪ কিলোমিটার সড়ক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বাংলা নববর্ষ উদযাপনের নির্দেশনায় যা আছে সপ্তম শ্রেণির ‌‌বিতর্কিত 'শরীফার গল্প' সংশোধন কতদূর? বাংলা বর্ষপঞ্জিতে যুক্ত হলো নতুন বর্ষ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ: পহেলা বৈশাখ আজ মুক্তিপণ দিয়েই জিম্মি থাকা ২৩ নাবিক ও এমভি আবদুল্লাহ জাহাজ মুক্ত পূর্ণাঙ্গ উৎসব ভাতার দাবিতে পতাকা হাতে বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের বিক্ষোভ ১০ দেশে অল্প খরচে পড়তে পারেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা
    • মাধ্যমিক
    • দুর্নীতি অনিয়ম: আইডিয়াল কলেজের অধ্যক্ষ জসিম উদ্দীন বহিষ্কার

    দুর্নীতি অনিয়ম: আইডিয়াল কলেজের অধ্যক্ষ জসিম উদ্দীন বহিষ্কার

    অবশেষে নানা নাটকীয়তার পর  দুর্নীতি ও নানা অনিয়মের দায়ে অভিযুক্ত আইডিয়াল স্কুল  এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. জসিম উদ্দীন আহম্মেদকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটি । শনিবার (৪ জুন) রাত সাড়ে ৮টায়  দীর্ঘ ৪ ঘণ্টার বৈঠক শেষে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিটি।

    শিক্ষামন্ত্রণালয়ের তদন্তে অনিয়মের প্রমান মিললেও বরখাস্তে কেন এত দেড়ি করলো এ নিয়ে নানা মহলে নানা প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে।

    শনিবার সকাল থেকেই নানা অনিয়ময়ের অভিযোগে রাজধানীর ধানমন্ডি আইডিয়াল কলেজের অধ্যক্ষ মো. জসিম উদ্দীন আহম্মেদসহ ৩ শিক্ষকের পদত্যাগর দাবিতে ক্লাসসহ একাডেমিক কার্যক্রম বর্জন করেছেন কলেজের সাধারণ শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। এর আগের দিন শুক্রবার ওই অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে ভুয়া পিএইচডি, অঢেল আর্থিক দুর্নীতি ও ব্যাপক অনিয়মে জড়িত থাকার অভিযোগ তুলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলন করে সাধারণ শিক্ষকরা। সংবাদ সম্মেলনে তাকে কলেজে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়।

     

    শিক্ষকরা অভিযোগ করে বলেন, কলেজের বর্তমান অধ্যক্ষ জসিম উদ্দীন আহম্মেদ ২০১৭ সালের মার্চ মাসে প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ হিসাবে নিয়োগপ্রাপ্ত হন। অধ্যক্ষ হিসাবে যোগদানের পর থেকেই তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনৈতিক কার্যক্রম, অনিয়ম ও আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ উঠা শুরু হয়।

     অধ্যক্ষ ও মার্কেটিং বিভাগের শিক্ষক তৌফিক আজিজ চৌধুরী, বাংলা বিভাগের শিক্ষক তরুণ কুমার গাঙ্গুলী, গণিত বিভাগের শিক্ষক মো. মনিরুজ্জামানসহ আরো কতিপয় শিক্ষককে সঙ্গে নিয়ে এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে তাদের ব্যক্তিগত প্রতিষ্ঠানের মতো পরিচালনা করেছেন বলে দীর্ঘ দিন ধরে অভিযোগ রয়েছে।