A PHP Error was encountered

Severity: Warning

Message: fopen(/var/cpanel/php/sessions/ea-php74/ci_sessione51040be00a7a22c6049006852b4dc51ab837694): failed to open stream: Disk quota exceeded

Filename: drivers/Session_files_driver.php

Line Number: 172

Backtrace:

File: /home/educationban/public_html/application/controllers/Front_side_news.php
Line: 6
Function: __construct

File: /home/educationban/public_html/index.php
Line: 315
Function: require_once

A PHP Error was encountered

Severity: Warning

Message: session_start(): Failed to read session data: user (path: /var/cpanel/php/sessions/ea-php74)

Filename: Session/Session.php

Line Number: 143

Backtrace:

File: /home/educationban/public_html/application/controllers/Front_side_news.php
Line: 6
Function: __construct

File: /home/educationban/public_html/index.php
Line: 315
Function: require_once

ক্যাম্পাসে পানি বাড়ায় পোকামাকড় ও সাপের উপদ্রব বাড়ছে- আতংকে শিক্ষাথীরা
  • উচ্চ শিক্ষা
  • ক্যাম্পাসে পানি বাড়ায় পোকামাকড় ও সাপের উপদ্রব বাড়ছে- আতংকে শিক্ষাথীরা

ক্যাম্পাসে পানি বাড়ায় পোকামাকড় ও সাপের উপদ্রব বাড়ছে- আতংকে শিক্ষাথীরা

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

গত কয়েকদিন ভারী বর্ষণ, পাহাড়ি ঢলে ফের বন্যার কবলে পড়েছে সিলেটের মানুষ।  ফলে নগরের ভেতরে পানি প্রবেশ করায় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবিপ্রবি) ক্যাম্পাসেও বন্যার পানি ঢুকেছে। এতে কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে পা থেকে হাঁটু পর্যন্ত পানি উঠেছে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলোতে।

ক্যাম্পাসের এক কিলো রোডে, চেতনা-৭১ এর সামনে, একাডেমিক ভবন এ, বি, ডি, ই এর সামনে, ইউনিভার্সিটি সেন্টার, প্রথম ছাত্রী হল, প্রধান প্রধান সড়কগুলোর অধিকাংশ জায়গায় হাঁটু পর্যন্ত পানি উঠেছে। এতে স্বাভাবিক চলাচল ব্যাহত হয়ে বিপাকে পড়েছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। তাতে সময় যতই গড়াচ্ছে বাড়ছে বন্যার পানি, বাড়ছে শঙ্কা। অন্যদিকে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন জায়গায় বিষাক্ত পোকামাকড়, সাপ, কেঁচোর উপদ্রব বাড়ায় শঙ্কিত শিক্ষার্থীরা। কেউ কেউ এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাতায়াত করতে না পারায় বিভিন্ন জায়গায় অবস্থান করছেন।


শিক্ষার্থীরা বলেন, ক্যাম্পাসে পানি থেকেও বড় সমস্যা হলের পানি, নেটওয়ার্ক, বিদ্যুৎ। পানি বাড়ার কারণে হলের মটর খুলে ফেলতে হইছে, এখন যে পানিটুকু আছে ট্যাংক ও ওটাই ভরসা। বিদু্্যুৎ ই,  এককিলো ও হলের আসা-যাওয়ার রাস্তায় পানি হয়ে যাওয়ায় যান চলাচল করছে না। টমটম ও অটো রিক্সাগুলোও বন্ধ হয়ে গেছে। এতে আমাদের চলাচলে ব্যাঘাত হচ্ছে। আমরা পানি বন্দি হয়ে পড়েছি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভারপ্রাপ্ত) বলেন, ক্যাম্পাস ও হলের আশেপাশে পানি বাড়ায় পোকামাকড় ও সাপের উপদ্রব বাড়ছে। হলের শিক্ষার্থীদের সতর্ক থাকতে বলেছি। হলের শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান থাকবে রাতে ঘুমানোর সময় দরজা-জানালা ভালোভাবে বন্ধ করে মশারি টাঙ্গিয়ে ঘুমাতে। রাতে কী হবে? সকালে উঠে কি দেখবো? তা নিয়ে আমরা চিন্তিত।