Home বিশ্ববিদ্যালয় শেকৃবিতে আন্তর্জাতিক হাল্ট প্রাইজ-২১ এর বিজয়ী টিম আপলোডিয়ান

শেকৃবিতে আন্তর্জাতিক হাল্ট প্রাইজ-২১ এর বিজয়ী টিম আপলোডিয়ান

62
0

শেকৃবি প্রতিনিধি

“ফুড ফর গুড” চ্যালেঞ্জ কে সামনে রেখে  শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নোবেল প্রাইজ খ্যাত আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা হাল্ট প্রাইজ-২০২১ ফাইনাল রাউন্ড অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিযোগিতায় টিম ‘”আপলোডিয়ান” চ্যাম্পিয়ন হয়ে পরবর্তী রিজিওনাল রাউন্ডের জন্য নির্বাচিত হয়েছে।  
দ্বিতীয় বারে আয়োজিত বিশ্ববিদ্যালয় হাল্ট প্রাইজ কোভিড পরিস্থিতি বিবেচনায় রেখে পুরো প্রতিযোগীতার আয়োজন করা হয়েছে অনলাইনে – জুম প্ল্যাটফর্মে। মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে ফাইনাল রাউন্ড এর কার্যক্রম শুরু হয়।

বিচারক হিসেবে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদের এগ্রি এক্সটেনশন বিভাগের অধ্যাপক ড. মাহবুবুল আলম, বহুব্রীহি প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান ও সহপ্রতিষ্ঠাতা গালিব হাসান খান, বাংলাদেশ ওয়াধনি ফাউন্ডেশনের প্রোগ্রাম ম্যানেজার এস্তানুল কবির এবং শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের এগ্রিবিজনেস ম্যানেজমেন্ট অনুষদের এগ্রবিজনেস এন্ড মার্কেটিং বিভাগের প্রভাষক সাইফুল ইসলাম শাওন উপস্থিত ছিলেন। 
ফাইনালে প্রধান অতিথি হিসেবে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. শহীদুর রশীদ ভূঁইয়া এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে ট্রেজারার অধ্যাপক ড. মো. নজরুল ইসলাম এবং গেস্ট অফ অনার হিসেবে ফার্মিং ফিউচার বাংলাদেশের চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার মো. আরিফ হোসাইন উপস্থিত ছিলেন।
ফাইনালে ৮টি টিমের বিজনেস আইডিয়া প্রেজেন্টেশন দেওয়ার পর বিচারকদের রায়ে টিম আপলোডিয়ান কে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয়। ১ম রানার আপ হিসেবে টিম বুলস আই এবং ২য় রানারআপ হিসেবে টিম এওয়াক এগ্রোফিলিক ইমপ্যক্টরস হিসেবে নির্বাচিত করা হয়।
খাদ্যকে উন্নয়নের বাহন হিসেবে ধরে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার ৭ টি বিষয়কে সামনে রেখে ২০৩০ সালের মধ্যে এক কোটিরও বেশি মানুষকে ভালোভাবে প্রভাবিত করতে পারে এমন চিন্তা-ভাবনা থেকেই এ চ্যালেঞ্জ বলে জানিয়েছেন আয়োজক হাল্ট প্রাইজ গ্লোবাল টিম।
হাল্ট প্রাইজ প্রতিযোগিতায় শিক্ষার্থীদের কে চারটি পর্বের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে হয়। সেগুলো যথাক্রমে অন ক্যাম্পাস প্রোগ্রাম, রিজিওনাল প্রোগ্রাম, এক্সেলেরেটর প্রোগ্রাম এবং গ্লোবাল ফাইনাল।
উল্লেখ্য, হাল্ট প্রাইজ ২০১০ সাল থেকে প্রতি বছর প্রধান একটি বৈশ্বিক সমস্যা (যেমনঃ শিক্ষা, খাদ্য, পরিবেশ, জ্বালানি, চিকিৎসা) বাছাই করে এবং সেটি ব্যবসায়ের মাধ্যমে সমাধানের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আহ্বান করে।এটিকে ‘শিক্ষার্থীদের নোবেল পুরষ্কার’ হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়।
প্রতিযোগিতাটির ক্যাম্পাস রাউন্ড চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সহ বিশ্বের ১২১ টির বেশি দেশে ২০০০ টির অধিক ক্যাম্পাসে ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে, যেখানে “ফুড ফর গুড” চ্যালেঞ্জ কে সামনে রেখে সচেতনতা বৃদ্ধি, ট্রেনিং, ওয়ার্কশপ, প্রতিযোগিতা কার্যক্রম আয়োজন করবে।
আগামী বছরের সেপ্টেম্বরে “ফুড ফর গুড” চ্যালেঞ্জ এর উপর ভিত্তি করে জাতিসংঘের হেডকোয়ার্টারে অনুষ্ঠিত হবে গ্লোবাল ফাইনাল, যেখানে বিজয়ী দলকে তাদের ব্যবসায়ের পরিধি বিস্তার করার জন্য পুরষ্কার হিসেবে দেওয়া হবে ১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।
যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন প্রতি বছর সেপ্টেম্বরে এ প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন।

Print Friendly, PDF & Email
শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here