Home কলেজ সাড়ে ৫ হাজার শিক্ষককে এমপিওভুক্ত করা না হলে আমরা আমরণ অনশনে কর্মসূচি...

সাড়ে ৫ হাজার শিক্ষককে এমপিওভুক্ত করা না হলে আমরা আমরণ অনশনে কর্মসূচি ঘোষণা করবো

453
0

দেশের ৩১৫টি বেসরকারি কলেজের অনার্স-মাস্টার্স কোর্স উঠিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়ে আমরণ অনশনের হুমকি দিয়েছেন শিক্ষক নেতারা। বুধবার (৬ জানুয়ারি) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) মিলনায়তনে এমপিওভুক্তির দাবিতে সংবাদ সম্মেলনে বেসরকারি কলেজ অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক ফেডারেশনের ব্যানারে এই হুঁশিয়ারি দেন তারা।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ বেসরকারি কলেজ অনার্স মাস্টার্স শিক্ষক ফেডারেশনের সংবাদ সম্মেলনে উচ্চশিক্ষা চালু থাকা ৩১৫টি কলেজের শিক্ষকদের এমপিওভুক্তির দাবি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষক নেতারা বলেন, সম্প্রতি শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন বেসরকারি ৩১৫টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অনার্স-মাস্টার্স থাকবে না। পরিবর্তে শর্ট কোর্স চালু করা হবে। এ বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও সুনির্দিষ্ট নির্দেশনাও দেওয়া হয়নি শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে। তবে ১৯৯৩ সাল থেকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে বেসরকারি ৩১৫টি কলেজে অনার্স-মাস্টার্স কোর্স চালু রয়েছে। বিগত ২৮ বছর ধরে সরকারি সুযোগ-সুবিধার না পেয়ে শিক্ষকরা উচ্চ শিক্ষা দিয়ে যাচ্ছেন। করোনা মহামারির মাঝেও শিক্ষকরা মানবেতর জীবন-যাপন করছেন।
সংবাদ সম্মেলনে বেসরকারি কলেজ অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক ফেডারেশনের আহ্বায়ক হারুন অর রশিদ অভিযোগ করে বলেন, বেসরকারি অনার্স-মাস্টার্স কলেজ সরকারি হয়েছে। আমরা এমপিও পাচ্ছি না। একই যোগ্যতা নিয়ে শিক্ষকতা শুরু করে কেউ সরকারি শিক্ষক আর কেউ সরকারি কোনও সুযোগ সুবিধা পাবে না তা কীভাবে সম্ভব।

সংগঠনের সদস্য সচিব মো. মোস্তফা কামাল বলেন, সর্বশেষ ২০১৮ সালের জনবল কাঠামোতে বামাদের অন্তর্ভুক্ত করার আশ্বাস দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় তা না করে অনার্স-মাস্টার্স কোর্স তুলে দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু শিক্ষকদের কী ব্যবস্থা হবে তা স্পষ্ট নয়। তাই সাড়ে ৫ হাজার শিক্ষককে এমপিওভুক্ত করা না হলে আমরা আমরণ অনশনে কর্মসূচি ঘোষণা করবো।

সংবাদ সম্মেলনে বেসরকারি কলেজ অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক ফেডারেশনের অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

অন্যদিকে বাংলাদেশ নিগৃহীত অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক পরিষদের দাবি, আগে জনবল কাঠামো অন্তর্ভুক্ত করে এমপিও দিতে হবে। জনবল কাঠামোতে অন্তর্ভুক্ত করার সুযোগ না থাকলে বিশেষ ব্যবস্থায় এমপিও দিতে হবে। তারপর অনার্স-মাস্টার্স স্তর উঠিয়ে দেবে কিনা না সরকার সিদ্ধান্ত নেবে।

বাংলাদেশ নিগৃহীত অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক পরিষদের সভাপতি ইমদাদুল হক মিলন এবং সাধারণ সম্পাদক এম মিলটন মণ্ডল স্বাক্ষরিত স্মারকলিপি দেওয়া হয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে।

এতে বলা হয়, দীর্ঘ ২৮ বছর বেসরকারি কলেজে অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক হিসেবে আমরা কর্মরত আছি। প্রতিষ্ঠান থেকে দেওয়া যৎসামান্য সম্মানী বেমানান। করোনার সময় শিক্ষকরা সেই সম্মানীও পান না। দেশের ৩১৫টি কলেজে কর্মরত সাড়ে ৫ হাজার মানবেতর জীবন-যাপন করছেন।

Print Friendly, PDF & Email
শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here