• মাধ্যমিক
  • টিরিং টিরিং সাইকেল চালাই ভিডিওটি আসামের ধুবরি জেলার

টিরিং টিরিং সাইকেল চালাই ভিডিওটি আসামের ধুবরি জেলার

সম্প্রতি ফেসবুকে সবচেয়ে আলোচিত ‘টিরিং টিরিং সাইকেল চালাই’ আবৃত্তি করা ভিডিওটি। তাতে দেখা যাচ্ছে, একজন ব্যক্তি সাইকেল চালানোর অঙ্গভঙ্গি করে একটি কবিতা আবৃত্তি করছেন। ভিডিওটি বাংলাদেশের ফেসবুক ব্যবহারকারীরা গত কয়েকদিন ব্যাপকভাবে শেয়ার করছেন। বলা হচ্ছে, এটি নতুন শিক্ষাক্রমে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ।

তবে অনুসন্ধানে জানা যায় পুরো ভিন্নচিত্র। এটি আসলে বাংলাদেশেরই কোনো ভিডিও নয়। আসামের ধুবরি জেলার একটি শিক্ষক প্রশিক্ষণের ভিডিও এটি। বাংলাদেশিরা এটিকে ‘টিরিং টিরিং সাইকেল চালাই’ বলে উল্লেখ করলেও আসলে এটি ‘টিলিং টিলিং ছাইকেল চলাই ফেরিওয়ালা যায়..কবিতা। ধুবরি জেলার একটি স্কুলে ক্লাসে কবিতাটা অভিনয় করে শেখানোর ভিডিও।

ধুবরি মিউনিসিপাল হাই স্কুলের শিক্ষক মুকুট শর্মার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ভিডিওটি দেখে জানান, কবিতাটি আসামের বিভিন্ন স্কুলে পড়ানো হয়। তিনি বলেন, ‘এ কবিতাটি আসামে ‘ভঙ্গিমা গীতি’ হিসেবে পরিচিত। প্রাথমিক পর্যায়ে স্কুলে এটি অভিনয় করে পড়ানো হয়। বিভিন্ন যানবাহন সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের পরিচিত করে তুলতে এটা প্রাইমারি লেভেলে শেখানো হয়। এছাড়া প্রশিক্ষণের যে ভিডিওটা ভাইরাল হয়েছে, সেটা অনেক পুরোনো।’

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনিও বলেছেন, ‘ফেসবুকে ছড়ানো ভিডিওগুলো আমাদের (মাধ্যমিক) শিক্ষাক্রমের অংশ নয়। বিশেষ গোষ্ঠী এগুলো ছড়িয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করে ফায়দা হাসিলের অপচেষ্টা চালাচ্ছে। কেউ কেউ ভিডিও কনটেন্ট বানিয়েও ছড়িয়ে দিচ্ছে।’ 

এছাড়া জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) থেকেও একই কথা জানানো হয়। পাশাপাশি অপপ্রচারকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও হুঁশিয়ার করা হয়।