• প্রাথমিক
  • স্কুলের মাঠ ভাড়া, সতত্য যাচাইয়ে কমিটি করলো উপজেলা প্রশাসন

স্কুলের মাঠ ভাড়া, সতত্য যাচাইয়ে কমিটি করলো উপজেলা প্রশাসন

ঘটনা অবাস্তব মনে হলেও সত্য।  স্কুলের মাঠ ঠিকাদারের কাছে ভাড়া দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে একটি উপজেলায়।  আর এই ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করেছে কোটালীপাড়া উপজেলা প্রশাসন।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাকে আহ্বায়ক করে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে সদস্য করে এই কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সম্প্রতি জেলার কোটালীপাড়া উপজেলার এই বিদ্যালয়ের মাঠ অর্থের বিনিময়ে ঠিকাদের কাছে ভাড়া দেন প্রধান শিক্ষক শেখ আব্দুর রশিদ।

বিদ্যালয় মাঠ ভাড়া দেওয়ায় ইটের স্তূপ আর খোয়া ভাঙার যন্ত্রের বিকট শব্দে বেকায়দায় পড়ে শিশু শিক্ষার্থীরা। বাধাগ্রস্ত হয় শ্রেণিকক্ষে পাঠদান। এলাকাবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করেন প্রধান শিক্ষকের মানসিকতা নিয়ে।

কোটালীপাড়ার ইউএনও ফেরদাউস ওয়াহিদ  সাংবাদিকদের বলেন, কমিটিকে সাত কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। প্রতিবেদন অনুযায়ী আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

এদিকে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে দায়ের করা এক মামলায় জামিনে থাকা প্রধান শিক্ষক শেখ আব্দুর রশিদ ও বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি হান্নান মোল্লা বুধবার আদালতে হাজিরা দিতে গেলে বিচারক তাদের জামিন বাতিল করে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন। কোটালীপাড়া আমলি আদালতের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম অনুশ্রী রায় এই আদেশ দেন।

এ সংক্রান্ত মামলার অভিযোগে বলা হয়,  ২০১৯ সালের ১৩ জুন প্রধান শিক্ষক আব্দুর রশিদ ও সভাপতি হান্নান মোল্লা ব্যবস্থাপনা কমিটির সিদ্ধান্ত ছাড়াই ব্যাংক থেকে চেকের মাধ্যমে এক লাখ ৫০ হাজার টাকা উত্তোলন করেন।

গত ২৪ মার্চ মো. সিরাজুল ইসলাম নামে একজন অভিভাবক বাদী হয়ে এই মামলা দায়ের করেন তাদের বিরুদ্ধে।