শিরোনাম
  • মেলায় যাই রে...গানটি বিটিভির ‘আনন্দ মেলা’ অনুষ্ঠানে প্রথম উপস্থাপন  ইসরাইলে হামলায় যেসব ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করেছে ইরান পঞ্চম গণবিজ্ঞপ্তিতে আবেদন শুরু বুধবার চলবে ৯ মে রাত ১২টা পর্যন্ত  আলপনার রঙে রাঙানো হচ্ছে হাওরের ১৪ কিলোমিটার সড়ক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বাংলা নববর্ষ উদযাপনের নির্দেশনায় যা আছে সপ্তম শ্রেণির ‌‌বিতর্কিত 'শরীফার গল্প' সংশোধন কতদূর? বাংলা বর্ষপঞ্জিতে যুক্ত হলো নতুন বর্ষ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ: পহেলা বৈশাখ আজ মুক্তিপণ দিয়েই জিম্মি থাকা ২৩ নাবিক ও এমভি আবদুল্লাহ জাহাজ মুক্ত পূর্ণাঙ্গ উৎসব ভাতার দাবিতে পতাকা হাতে বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের বিক্ষোভ ১০ দেশে অল্প খরচে পড়তে পারেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা
    • কৃষি শিক্ষা
    • বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আহমেদ মোত্তাকির ‍উদ্যোগে মালদ্বীপে কৃষি বিদ্যালয়

    বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আহমেদ মোত্তাকির ‍উদ্যোগে মালদ্বীপে কৃষি বিদ্যালয়

    বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আহমেদ মোত্তাকি। গত ৩0 বছর ধরে অবস্থান করছেন মালদ্বীপে। একজন সফল ব্যবসায়ী। ২০০৬ সালে মালদ্বীপে নিজ মালিকানায় প্রতিষ্ঠা করেন মিয়াঞ্জ ইন্টারন্যাশনাল গ্রুপ। তার বাংলাদেশ থেকে আমদানিকৃত উল্লেখযোগ্য কয়েকটি কোম্পানি মিয়াঞ্জ ফুডস, স্কয়ার, বেঙ্গল মিট, এসিআই এবং আকিজ বেভারেজের (স্পিড কার্বনেটেড ড্রিংক) একমাত্র পরিবেশক ছিলেন মিট স্টিট রেস্টুরেন্ট মিয়াঞ্জ ইনভেস্টমেন্ট প্রাইভেট লিমিটেডের অধীনে।

    ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল উপজেলার শাহবাজপুরের মিয়াবাড়িতে বেড়ে ওঠেছেন তিনি। তরুণ বয়সে পারিবারিক সূত্রে পাড়ি জমান মালদ্বীপে। প্রথমে তার প্রবাস জীবন শুরু হয় মালদ্বীপের আমিনিয়া স্কুলের ব্যবসায়িক সাবজেক্টের প্রধান হিসেবে।

    ১৯৯৪-২০১০ সাল পর্যন্ত সরকারি স্কুলে শিক্ষকতা করলেও নিজের মধ্যে একটি অস্থিরতা কাজ করতো সবসময়। কারণ শিক্ষকতার পাশাপাশি সময় থেকেই নিজে কিছু করতে চাইতেন। তিনি জানতেন সফলতার জন্য প্রয়োজন দৃঢ় মনোবল এবং কঠোর পরিশ্রম। আর এসবের মাধ্যমেই একজন মানুষ হয়ে ওঠে সেরাদের সেরা। তিনি একজন মালদ্বীপ-বাংলাদেশি উদ্যোক্তা।

     

    শুরুর দিকে খুব একটা ভালো করে উঠতে না পারলেও সেই সময় অনেকটা ধৈর্যের পরিচয় দিয়েছেন তিনি।

     

    ২০০৬ সলের শেষের দিকে এমআই কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন, তার বছর খানেক বাদে ঘুরে দাঁড়ায় তার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো। এরপর আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি আহমেদ মোত্তাকিকে।

     

    বর্তমানে মালদ্বীপের বিভিন্ন দ্বীপে তার এমআই কলেজের ১৭টি শাখা রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১০ মে মালদ্বীপের ঐতিহাসিক আড্ডু শহরে বাংলাদেশী শিক্ষা উদ্যোক্তা আহমেদ মুত্তাকির উদ্যোগে এমআই কলেজের স্কুল অব এগ্রিকালচারের শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে।

    এ আন্তর্জাতিক কলেজের কৃষি ফ্যাকাল্টি হিসেবে আড্ডু শহরে এমআই কলেজ স্কুল অফ এগ্রিকালচার আনুষ্ঠানিকভাবে কার্যক্রম শুরু করেন|

    মালদ্বীপে কৃষি শিক্ষা প্রবর্তনের ক্ষেত্রে সরকারি বেসরকারি পর্যায়ে এটায় সর্বপ্রথম উদ্যোগ।এ উদ্যোগে প্রাথমিকভাবে সার্টিফিকেট ইন লেবেল থ্রি গার্ডেন কোর্সটি শুরু করা হয়েছে এবং পরবর্তীতে অন্যান্য কৃষি বিষয় কোর্স সহ কৃষিতে স্নাতক কোর্স শুরু করা হবে বলে জানান আহমেদ মোত্তাকি। তিনি বলেন, সংশ্লিষ্ট কোর্সটি পরিচালনা ও সার্বিক কর্যক্রম তদারকির জন্য সম্প্রসারণ অধিদপ্তর বাংলাদেশ থেকে সম্প্রতি অবসরপ্রাপ্ত দুইজন কর্মকর্তা ড. মাহমুদ মিরদাহ এবং ড. মো. খালেদ কামাল ইতোমধ্যেই আড্ডু কেম্পাস কার্যক্রমে যোগ দিয়েছেন।

    এমআই কলেজের স্কুল অফ এগ্রিকালচারের শুভ উদ্বোধনে আড্ডু শহরের সাবেক মেয়র ও পরিকল্পনা এবং হাউজিং মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী আব্দুল্লাহ সাদিক উপস্থিত ছিলেন।

    তিনি এ ধরনের উদ্যোগকে স্বাগতম জানান এবং এর সফলতা কামনা করে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। উদ্বোধনের পর আমন্ত্রিত অতিথিরা এর বিভিন্ন স্থাপনা, ল্যাবরেটরি, সংগৃহীত জার্মপ্লাজম ও ব্যবহারিক সুবিধাদি পরিদর্শন করে সন্তুটি প্রকাশ করেন।