শিক্ষার মান উন্নয়নে পদ্মা সেতুর চেয়ে বড় মেগা প্রকল্প আসছে

ভবিষ্যতে শিক্ষায় পদ্মা সেতুর চেয়ে বড় প্রকল্প নেওয়া হবে। সে প্রকল্প শুধু অবকামোগত হবে না। শিক্ষার মান উন্নয়ন, শিক্ষকদের ক্ষমতায়ন এবং শিক্ষার্থীদের সুযোগ-সুবিধা প্রদানের জন্য এ প্রকল্প নেওয়া হবে। গত মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ডা. কায়সার রহমান অডিটোরিয়ামে রাজশাহী জেলার সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানদের অংশগ্রহণে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমাদেরকে শিক্ষায় পদ্মা সেতুর চেয়ে বড় মেগা প্রকল্প হাতে নিতে হবে। সে প্রকল্প শুধু অবকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য নয়; আমাদের শিক্ষকদের জীবনমান উন্নয়ন করতে হবে, শিক্ষার্থীদের উপকারের জন্য। কারণ শিক্ষকদের দক্ষতা, মান, অভিজ্ঞতায় যদি আমরা বিনিয়োগ করি, তাহলে শিক্ষার্থীরা বেশি উপকৃত হবে। শিক্ষার্থীরা উপকৃত হলে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্মার্ট বাংলাদেশের যে স্বপ্ন দেখিয়েছেন ও অঙ্গীকার করেছেন, তা বির্নিমাণ সম্ভব হবে।

তিনি আরও বলেন, উন্নত বিশ্বে প্রথম সারির প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা পড়াশোনার পাশাপাশি রেস্টুরেন্টে গিয়ে কাজ করে। কাজের পাশাপাশি শিক্ষা গ্রহণ করে। আবার অনেকে একাডেমিক শিক্ষায় ‘গ্যাপ’ দিয়ে দক্ষতা অর্জনে বিভিন্ন কাজ করে। আমাদের শিক্ষার্থীদের সেই ধরনের মানসিকতা তৈরি করতে হবে। শিক্ষার্থীদের শিখতে শেখাতে হবে।

নতুন কারিকুলাম নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, চাকরিদাতারা এখন ফলাফল দেখে অথবা সনদ দেখে চাকরি দিতে চায় না। চাকরিদাতারা এখন দক্ষতা দেখতে চায়। ফলাফল ও মুখস্থনির্ভর শিক্ষায় শিক্ষার্থীরা হয়ত ভালো ফলাফল করে কিন্তু দক্ষ হয় না। নতুন কারিকুলামে দক্ষতানির্ভর শিক্ষায় গুরুত্বারোপ করা হয়েছে।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব সোলেমান খানের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান বাদশা, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ, আন্তঃবোর্ডের প্রধান সমন্বয়ক ঢাকা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক তপন কুমার প্রমুখ।