• শিক্ষা মন্ত্রণালয়
  • আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক পর্যায়ে শিক্ষার গুরুত্বকে দৃশ্যমান করার আহ্বান শিক্ষামন্ত্রীর

আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক পর্যায়ে শিক্ষার গুরুত্বকে দৃশ্যমান করার আহ্বান শিক্ষামন্ত্রীর

উত্তরোত্তর বৈষম্য বৃদ্ধি, বর্ণবাদ এবং নানা কারণে বিশ্ব এখন ভয়াবহ সংঘাতের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। এই প্রেক্ষাপটে একটি রূপান্তরিত এবং কার্যকর শিক্ষা ব্যবস্থা দীর্ঘমেয়াদি রক্ষাকবচ হিসেবে কাজ করতে পারে। দ্বন্দ্ব সংঘাতমুক্ত শান্তিপূর্ণ সমাজ নির্মাণে শিক্ষার গুরুত্বকে আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক পর্যায়ে দৃশ্যমান করার লক্ষে

গতকাল আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে আন্তর্জাতিক শিক্ষা দিবস–২০২৪ উদ্‌যাপন উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় ভার্চ্যুয়ালি যুক্ত হয়ে শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী এ আহ্বান জানান। 

দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘দীর্ঘস্থায়ী শান্তির জন্য শিক্ষা’। 

অনুষ্ঠানে প্রাথমিক ও গণ শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী বেগম রুমানা আলী বলেন, ‘বর্তমান বিশ্ব একটি সংঘাতময় সময় অতিবাহিত করছে। জাতিগত দ্বন্দ্ব, মানুষে মানুষে বৈষম্য, বর্ণবাদ, ঘৃণাত্মক বক্তব্য এ সংঘাতকে আরও বাড়িয়ে তুলছে। আগের যে কোন সময়ের তুলনায় শান্তির জন্য কার্যকর প্রতিশ্রুতি এখন আরও জরুরি এবং শিক্ষা এ ক্ষেত্রে মূল নিয়ামক।’ 

আলোচনা সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইমেরিটাস অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন—প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব ফরিদ আহাম্মদ, কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব আজিজ তাহের খান, বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন কাউন্সিলের সদস্য অধ্যাপক ড. গুলশান আরা লতিফা এবং হেড অব অফিস অ্যান্ড ইউনেসকো রিপ্রেজেনটেটিভ টু বাংলাদেশ সুজান ভাইজ। 

এ ছাড়া বিভিন্ন সরকারি–বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এবং উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার কর্মকর্তা ও প্রতিনিধিরা আলোচনা সভায় আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।